Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest

How to take underwater photos | tips | use of camera equipment for beginners

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});



কি ভাবে ডুবো ফটো নিতে হয় । https://youtu.be/4AF3eDQVILw
আলো বা অন্য কোনো রকম তাড়িৎ-চৌম্বকীয় বিচ্ছুরণকে (electromagnetic radiation) কাজে লাগিয়ে টেঁকসই ছবি সৃষ্টি করার যে শিল্প, বিজ্ঞান ও পদ্ধতি—তাকে বলে ফটোগ্রাফি। ফটোগ্রাফিক ফিল্ম জাতীয় আলোক-সংবেদনশীল বস্তুর মাধ্যমে রাসায়নিক পদ্ধতিতে অথবা কোনো ইমেজ সেন্সরের মাধ্যমে বৈদ্যুতিক পদ্ধতিতে ফটোগ্রাফ তোলা সম্ভব।[১] ক্যামেরার ভিতর একটি আলোক-সংবেদনশীল তল থাকে। সাধারণত, লেন্সের মাধ্যমে কোনো বস্তু থেকে প্রতিফলিত বা নিঃসৃত আলো ফোকাস করে একটি নির্দিষ্ট সময়ের এক্সপোজারে ওই তলে বস্তুর একটি যথার্থ ছবি (real image) ধরা হয়। একটি বৈদ্যুতিক ইমেজ সেন্সরে এর ফল হয়, প্রতি পিক্সেলে একটি ইলেক্ট্রিক্যাল চার্জ। এটি একটি বৈদ্যুতিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পরিণতিলাভ করে এবং পরবর্তী প্রদর্শন বা প্রসেসিং-এর জন্য একটি ডিজিট্যাল ইমেজ ফাইলে সঞ্চিত হয়। ফটোগ্রাফিক এমালসনে এর ফলে একটি ল্যাটেন্ট ইমেজ তৈরি হয়। এটি পরে রাসায়নিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ডেভেলপড হয়ে একটি দৃশ্যমান ইমেজে পরিণত হয়। এই দৃশ্যমান ইমেজটি ফটোগ্রাফিক উপকরণ ও প্রসেসিং-এর পদ্ধতি অনুযায়ী হয় নেগেটিভ বা পজিটিভ হয়ে থাকে। প্রথাগতভাবে, ফিল্মে একটি নেগেটিভ ইমেজ থেকে কাগজে পজিটিভ ইমেজ তৈরি হয়। এটিকে বলে প্রিন্ট। এনলার্জার বা কনট্যাক্ট প্রিন্টিং পদ্ধতিতে এটি করা হয়।

More Videos –
1. Istambul- https://youtu.be/QRD5lrenLxM
2.Hong kong- https://youtu.be/4EQdsCyFz9A
3.paris – https://youtu.be/WAdb62Q61Bg
4.Largest Telescope – https://youtu.be/Nh58SPiAB2Q
5.Rangamati – https://youtu.be/0nLn_bvPoR0
6.Channel Intro children – https://youtu.be/JiX8vKI1EYk
7.For visitor – https://youtu.be/-HVw5qsRmgI

Support site by sharing this post

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on pinterest
Pinterest
Share on linkedin
LinkedIn
Share on reddit
Reddit
Share on tumblr
Tumblr
Share on stumbleupon
StumbleUpon

Leave a Reply